সামাজিক মর্যাদা বেড়েছে আসমা বেগমের

টাঙ্গাইল জেলার নাগরপুর উপজেলার একটি গ্রামের নাম দূয়াজানি । এই গ্রামের এক সময়ের দরিদ্র দিনমজুরের স্ত্রী আছমা বেগম বর্তমানে একজন সফল সবজি চাষী। বিয়ের পর থেকেই তার স্বামীর সামান্য আয় দিয়ে কোন রকমে সংসার চলত। দেখতে দেখতে তাদের ঘরে জম্ম নেয় ৪টি কন্যা সন্তান। এই দুর্দিনেও আছমা বেগম মনোবল হারান নি। একদিন প্রতিবেশির কাছ থেকে জানতে পারেন পল্লী দারিদ্র্য বিমোচন ফাউন্ডেশন এর সমিতির কথা। পরবর্তিতে তিনি দূয়াজনি পূর্বপাড়া সমিতিতে ভর্তি হয়ে সঞ্চয় জমা করতে থাকেন।পিডিবিএফ এর উপজেলা দরিদ্র বিমোচন কর্মকর্তার পরামর্শে ৫ হাজার টাকার ঋণ নিয়ে বাড়ির আঙ্গিনায় খুবই অল্প জায়গায় বিভিন্ন শাক-সবজি আবাদ শুরু করেন।যা থেকে নিজেদের চহিদা পূরণের পর বাজারে বিক্রি করে প্রচুর লাভ করেন।পরবর্তিতে তিনি পিডিবিএফ হতে ৫৫হাজার টাকা ঋণ নিয়ে গড়ে তুলেছেন ২.৫০ একর জায়গায় বিশাল সবজি বাগান। তার বাগানে আরও ৮/১০ জন লোকের কর্মসংস্থান হয়েছে।তার সবজি বাগানে পিডিবিএফ এর কর্মীরা প্রয়াশঃ আসেন এবং তাকে বিভিন্ন পরামর্শ দিয়ে থাকেন।তার প্রতি বছর প্রায় ৫০ হাজার টাকার মত লাভ হয়।এখন তার মেয়েরা লেখাপড়া করে সুন্দর ভবিষৎ গড়ার স্বপ্ন দেখছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.