পিডিবিএফ এর প্রধান কার্যালযসহ জেলা/উপজেলার বিপুল সংখ্যক কর্মকর্তা-কর্মচারীগণের সমন্বয়ে কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন (কেআইবি) এ সম্মেলন

পিডিবিএফ এর প্রধান কার্যালয়সহ জেলা/উপজেলার বিপুল সংখ্যক কর্মকর্তা/কর্মচারীগণের সমন্বয়ে ৩১ আগষ্ট, ২০১৯ তারিখ কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন (কেআইবি), খামারবাড়ী, ফার্মগেট, ঢাকাতে এক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জনাব মোঃ কামাল উদ্দিন তালুকদার, চেয়ারপার্সন, পিডিবিএফ বোর্ড অব গভর্ণর্স এবং সচিব, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগ, স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়।   বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন জনাব মোঃ আফজাল হোসেন, অতিরিক্ত সচিব (প্রতিষ্ঠান) পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগ, স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়। উক্ত সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন পিডিবিএফ এর ভারপ্রাপ্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক কৃষিবিদ জনাব মোঃ আমিনুল ইসলাম।

সম্মেলনে প্রধান অতিথি জনাব মোঃ কামাল উদ্দিন তালুকদার, শোকাবহ আগস্ট মাসে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারের শহীদ সদস্যদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন। তিনি বলেন-বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ছিলো ক্ষুধা ও দারিদ্র্য মুক্ত সোনার বাংলাদেশ গড়া। তাঁর রাজনৈতিক আদর্শের মধ্যে একটি বিশেষ দিক ছিলো মেহনতি মানুষের অভাব দূর করা। সে লক্ষ্যে তিনি আজীবন কাজ করেছেন। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্ন বাস্তবায়নের উদ্দেশ্যে তাঁরই সুযোগ্য কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা দেশের দরিদ্র মানুষের আর্থ-সামাজিক অবস্থা উন্নয়ন ও নারী পুরুষের সমতায়নের মাধ্যমে সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে ১৯৯৯ সনে জাতীয় সংসদে আইনের মাধ্যমে পিডিবিএফ প্রতিষ্ঠা করেন।

প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে পিডিবিএফ এর সহকর্মীগণ দরিদ্র অসহায় মানুষের ভাগ্যোন্নয়নের উদ্দেশ্যে নিরলস পরিশ্রম করে দেশের উন্নয়নে অবদান রেখে চলেছে। কিন্তু বিগত ব্যবস্থাপনার আর্থিক দূর্নীতি, প্রশাসনিক বিশৃঙ্খলা ও নিয়ম বহির্ভূতভাবে পদোন্নতিসহ বিভিন্ন অনিয়মের কারণে পিডিবিএফ এর অগ্রগতি হুমকির সম্মুখীন হয়। পিডিবিএফ এর উন্নয়নের স্বার্থে তিনি আগামী সাতদিনের মধ্যে সকল প্রকার অনিয়ম ও দূর্নীতি উদঘাটন পূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণ এবং পদোন্নতিযোগ্য ব্যক্তিদের তালিকা প্রস্তুত পূর্বক তাঁর (সচিব মহোদয়) নিকট উপস্থাপনের নির্দেশনা প্রদান করেন। এছাড়াও প্রতিষ্ঠানের উন্নয়নের স্বার্থে অনতিবিলম্বে পিডিবিএফ প্রবিধানমালা সংশোধন করে শক্তিশালী পিডিবিএফ গঠনের জন্য কর্মকর্তা-কর্মচারীগণের ও ব্যবস্থাপনা পরিচালকের জন্য আলাদা বিধিমালা প্রণয়ন করা হবে বলে তিনি সভায় জানান।

তিনি বলেন, পিডিবিএফ একটি রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান। এই প্রতিষ্ঠান দেশের উন্নয়নে সরকারের বিভিন্ন কর্মসূচি বাস্তবায়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। পিডিবিএফকে আরও শক্তিশালী করার জন্য প্রত্যেক জেলা, উপজেলায় এর কার্যক্রম সম্প্রসারণ, ঋণের সার্ভিস চার্জ সিঙ্গেল ডিজিটে আনয়ন, পিডিবিএফ এর নিজস্ব ভবন নির্মাণ, বিভিন্ন প্রকল্প বাস্তবায়নসহ প্রতিষ্ঠানের আর্থিক সক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে। এ লক্ষ্য বাস্তবায়নের জন্য তিনি সকলকে আন্তরিক এবং নিজ নিজ দায়িত্ব যথাযথভাবে পালনের জন্য সভায় নির্দেশনা প্রদান করেন। তিনি বলেন সবার আগে প্রতিষ্ঠানকে বাঁচাতে হবে। তিনি পিডিবিএফকে একটি সরকারী প্রতিষ্ঠানের আঙ্গিকে দেখার  আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

বিশেষ অতিথি জনাব মোঃ আফজাল হোসেন, অতিরিক্ত সচিব (প্রতিষ্ঠান) পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগ, স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় শোকের এ মাসে বঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারের শহীদদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন।

অতিরিক্ত সচিব মহোদয় বলেন বিগত আড়াই বছরে সাবেক এমডি মদন মোহন সাহার সময়ে পিডিবিএফ এ কোন শৃংখলা ছিলো না। সকল ক্ষেত্রে মন্ত্রণালয়ের নির্দেশ অমান্য করে অসহযোগীতা করা হয়েছে, যার জন্য মন্ত্রণালয় পিডিবিএফ এর সাথে কোন কাজ করতে পারেনি। তিনি নতুন ব্যবস্থাপনা পরিচালক এর সাথে একাত্ম হয়ে কাজ করার জন্য সকলকে নির্দেশনা প্রদান করেন। তিনি বলেন, পিডিবিএফ এর কাজকে দেশব্যাপী এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার সকল চেষ্টা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে করা হবে।

পিডিবিএফ এর ভারপ্রাপ্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সভাপতি কৃষিবিদ জনাব মো: আমিনুল ইসলাম হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবার, জাতীয় চার নেতা এবং মহান মুক্তিযুদ্ধের শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে তাঁর বক্তব্য শুরু করেন। তিনি বলেন, মাননীয় সচিব মহোদয় পিডিবিএফ এর কর্নধার। তিনি এমন এক মুহুর্তে দায়িত্ব নিয়েছেন যখন পিডিবিএফ এর সংকটজনক অবস্থা বিরাজ করছিলো। এই দু:সময়ে মহান আল্লাহ সচিব মহোদয়কে এ প্রতিষ্ঠানের দায়িত্ব দিয়েছেন। তিনি বলেন গত ০৫.০৮.১৯ তারিখ পিডিবিএফ এর বিভিন্ন অনিয়ম, দূর্নীতি এবং নানাবিধ সমস্যার মধ্যে তাঁকে দায়িত্ব নিতে হয়েছে। তিনি জানান দেশের দুই তৃতীয়াংশ এলাকার ৪০৩ টি কার্যালয়ের মাধ্যমে পিডিবিএফ কাজ করছে।

ব্যবস্থাপনা পরিচালক মহোদয় বলেন, সকলকে নিয়ে পিডিবিএফ কে ঢেলে সাজানোর প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। এ পর্যায়ে তিনি বলেন ক্ষুদ্র ঋণ থেকে বের হয়ে ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা ঋণ নিয়ে কাজ করতে হবে। খেলাপী আদায়ে মনিটরিং ব্যবস্থা জোরদার  করতে হবে। গত আড়াই বছরে পিডিবিএফ কোন প্রকল্প গ্রহন করতে পারেনি। নতুন প্রকল্প গ্রহণের মাধ্যমে পিডিবিএফ এর সক্ষমতা বাড়াতে হবে। সরকারী সাহায্য ছাড়া কোন প্রতিষ্ঠান দাঁড়াতে পারে না তাই সরকারী সাহায্য আনার জন্য নতুন নতুন প্রকল্প জমা দিতে হবে।   

ব্যবস্থাপনা পরিচালক মহোদয় পিডিবিএফ এর সকল অনিয়ম ও দুর্নীতি সমূলে উৎপাটন করে প্রতিষ্ঠানকে একটি কর্মী বান্ধব ও  সুদূঢ় আর্থিক প্রতিষ্ঠান হিসাবে গড়ে তোলার আশাবাদ ব্যক্ত করেন। তিনি সকল ক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠানের শৃঙ্খলা ফিরিয়ে এনে দরিদ্র মানুষের আর্থ সামাজিক অবস্থা উন্নয়নে কাজ করার জন্য সকলের সহযোগিতা কামনা করেন। সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জনাব মোঃ সোলায়মান, পরিচালক, মাঠ পরিচালন এবং পিডিবিএফ প্রধান কার্যালয় ও মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের পক্ষ থেকে প্রতিনিধিগণ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.